,


সংবাদ শিরোনাম:

সিলেট “দামারি হাওর” যেন আরেক রাতারগুল!

সিলেট “দামারি হাওর” যেন আরেক রাতারগুল!

 

নিজস্ব প্রতিবেদক::
হাওরের নাম দামারি। প্রতিদিন হাজারো পর্যটকের যাতায়াত এই হাওরের পাড় ঘেঁষে। অনেকে চলন্ত গাড়ি থেকে দামারিকে চোখে দেখেই মুগ্ধ হন, সেই মুগ্ধতার পরশ মেখেই চলে যান জল-পাথরের বিছনাকান্দি আর ভোলাগঞ্জের সাদা পাথরের পথে।

সেখানে সুন্দর একটি বন আছে, জলে ভাসা সবুজ বন।’কথা শুনে মনে হচ্ছে ‘আরেক রাতারগুল নাকি?’

সত্যিই দামারি হাওর যেন আরেক রাতারগুল। সিলেট শহর থেকে ১৫ কিলোমিটার সড়কপথের দূরত্ব। জায়গাটা সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার নন্দীরগাঁও ইউনিয়নের শালুটিকরে। নাম দামারি হাওর। হিজল-করচ অর্ধডুবো হয়ে আছে সে হাওরে। গোয়াইন আর সারি নদের প্রতিবেশী দামারি।

শালুটিকর বাজার তো অনেকের চেনা। বাজারের উত্তর-পশ্চিমেই অবস্থান দামারি হাওরের। প্রতিদিন হাজারো পর্যটক এই হাওরের ঘা ঘেঁষে যাতায়াত করেন। কেউ হয়তো চলন্ত গাড়ি থেকে আড়চোখে হাওরটি দেখেই চলে যান জল-পাথরের বিছনাকান্দি আর পাথররাজ্য ভোলাগঞ্জের সাদা পাথরে।

হিজল-করচসহ নানা জাতের গাছের দখলে হাওরের চারপাশ।দূর থেকে তো সবুজে ঘেরা প্রাকৃতিক হ্রদের মতোই লাগে দামারিকে ।  কাছে এসে দেখা মিলবে অন্য রূপ। আর ওই যে হাওর লাগোয়া ছোট-বড় দ্বীপের মতো দাঁড়িয়ে থাকা বৃক্ষশোভিত বাড়িগুলো, সেগুলোও কেমন মুগ্ধতা ছড়ায়।

 

দামারির পানি এতই স্বচ্ছ যে আকাশ দেখতে পানিতে তাকালেই হয়। গাছগুলো বেশ ডালপালা ছড়িয়ে আছে। তাই নৌকা নিয়ে ভেতরে যাওয়ার জো নেই।

হাওর থেকে অদূরে দেখা মিলবে মেঘালয়ের পাহাড়ের। পাহাড়ের কোল বেয়ে নেমে আসা ঝরনাধারা।

যেভাবে যাবেন::

দেশের যেকোনো শহর থেকে প্রথমে সিলেটে আসতে হবে। ঢাকা থেকে বাস, ট্রেন, উড়োজাহাজে আসা যাবে সিলেটে। সিলেট শহরে থেকে অটোরিকশায় সরাসরি যাওয়া যায় শালুটিকর বাজার। জনপ্রতি ভাড়া ৩৫ টাকা। অটোরিকশা রিজার্ভ (যাওয়া-আসা) নিতে লাগতে পারে ৬০০ টাকা। শালুটিকর বাজারেই ঘাট থেকে নৌকা ভাড়া পাওয়া যায়। আলোচনা করে ঠিক করে নিতে হবে সময় ও ভাড়া।

Share

Comments are closed.