,


সংবাদ শিরোনাম:

‘নূহ (আ.)-এর নৌকা’ দেখতে ভিড় বাড়ছে পর্যটকদের

‘নূহ (আ.)-এর নৌকা’ দেখতে ভিড় বাড়ছে পর্যটকদের

 

 হজরত নূহ (আ.) নবীর নৌকা ও মহাপ্লাবনের কাহিনী শোনেননি এমন মানুষ খুব একটা পাওয়া যাবে না। কোরআন ও বাইবেল অনুসারে, অবিশ্বাসীদের নির্মূল করতে পৃথিবীতে মহাপ্লাবন সৃষ্টি করেন ঈশ্বর। সে সময় ঈশ্বরের আদেশে বিশাল একটি নৌকা তৈরি করেন নূহ নবী। তারপর সেই নৌকায় বিশ্বাসী মানুষ ও এক জোড়া করে অন্য প্রাণিদের আশ্রয় দেওয়া হয়, যাতে করে তারা মহাপ্লাবনের হাত থেকে বেঁচে যায়।

মহাপ্লাবনের এই ঘটনাটি ঘটেছে হাজার হাজার বছর আগে। অস্তিত্ব নেই নূহ (আ.) এর সেই নৌকারও। তবে সেটির কাল্পনিক এক প্রতিরূপ তৈরি করেছেন নেদারল্যান্ডের কাঠমিস্ত্রী জোহান হুইবার। পানিতেও ভাসানো হয়েছে ২ হাজার ৫০০ টনের ওই নৌকাটি। আর বাইবেলে দেওয়া পরিমাণ অনুযায়ী নিখুঁতভাবে সেটি তৈরি করা হয়েছে।

 

 

 

এখন নৌকাটি রাখা রয়েছে রাজধানী আমস্টারডামের দক্ষিণে একটি শহরে। আর এই নৌকাটি দেখতে ভিড় বাড়ছে পর্যটকদের। জোহানের পরিকল্পনা হলো, নৌকাটি চালিয়ে ইহুদিদের পূণ্যভূমি ইসরেয়েলে যাবেন তিনি।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের খবরে বলা হয়, ওই নৌকাটি নির্মাণ করতে খরচ হয়েছে ১৬ লাখ মার্কিন ডলার। জোহান সেটির নির্মাণকাজ হাতে নেন ছয় বছর আগে। আর হ্যাঁ, নৌকায় রয়েছে বিভিন্ন প্রাণি। তবে সেগুলো কাঠের তৈরি।

নৌকার নির্মাণকাজ হাতে নেওয়ার সময় থেকে সেটিকে ইসরায়েলে নেওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন জোহান। তবে হতাশার বিষয় হলো, সেটিতে নেই কোনও ইঞ্জিন। তাই এতো পথ পাড়ি দেওয়ার একমাত্র উপায় সেটিকে অন্য জাহাজ দিয়ে টেনে নিয়ে যাওয়া।

এ কারণে জোহানের দরকার হয় আর্থিক সহায়তা। এর পরিমাণটাও একেবারে কম নয়, পুরো ১৩ লাখ ডলার। এ কারণে আর্থিক সহায়তাও চেয়েছেন তিনি।

Share

Comments are closed.